‘কাদের, তুই কাদের মোল্লার পক্ষে, তুই আমার কেউ না’
শেখ বাতেন , রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৩


কাদের সিদ্দীকি নিয়া যত কম কথা বলা যায়, ততই ভাল। কিন্তু পারা যায় না। এমনভাবে সামনে এসে পড়ে। তাকে না মাড়িয়ে যাওয়া যায় না। অথচ কিছু না বলা বললে মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে আমার সম্মান জখম হয়। ঘুম থেকে জেগেই ইন্ডারনেট এডিশনে আমার দেশ পত্রিকাটা একবার দেখলাম। তাতেই চোখ আটকে যায়। এদের শীর্ষ নিউজ,কাদের সিদ্দীকির বক্তব্য: ‘আমি রাজাকার হলে বঙ্গবন্ধু রাজাকার কমান্ডার।’ তরুন প্রজন্ম ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে রাজাকার বলেছিলো।

বঙ্গবন্ধু নিহত হয়েছেন। অনেক মুক্তিযোদ্ধা বেঁচে আছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের একটা বড় অংশ ভিক্ষুকের মতই জীবন নিয়ে বেচে আছেন। আর একটা অংশ দুর্নীতি, লুণ্ঠণ, ডাকাতি পর্যন্ত করেছে। আমি বলিনা কাদের এর সবগুলি করেছে। কিন্ত দুনীতি? কাদেরকে ভাবতে গেলে এখনও আমার চোখে ভাসে পত্রিকার (প্রথম আলো) প্রথম পৃষ্ঠায় ট্ঙাাইল এলাকার ব্রিজ কালভার্টের ছবি। কাদেরের ইমেজের যুদ্ধোত্তর সংযোজন। তার ঠিকাদারির যে তথ্য পাওয়া গেল। এসবের উপযুক্ত জবাব দেবার মতো কোনো তথ্য আমি তো এখনো পেলাম না, কেনো?

অধিকন্তু, গত চল্লিশ বছর ধরেই দেখছি: কেউ যদি ১০০ ভাগ বঙ্গবন্ধু হন, কাদের ১৫০ ভাগ। কেউ যদি ১০০ ভাগ ধর্মধারী হন, কাদের ২০০ শ ভাগ। কেউ বীর মুক্তিযোদ্ধা হন, কাদের তাদেরও বীর। বীরত্ব শুধু সামরিকতায় সীমিত থাকলে আপত্তি ছিলনা। কাদের বিশ্লেষক, কলামিষ্ট, আজকাল সবটায় বীর। কলামের বিষয়বস্তু উপস্থাপনের অসংলগ্নতা বাদ দিলাম। এ গুলোর বাক্যগঠন ও নিচু মানের।

আমার স্মরণ আছে। আমি ম্যাজিস্ট্রেট । ঢাকা শহরে মীরপুরে নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব পালন করছি। আমি, আমরা সমগ্র শক্তি দিয়ে রাষ্ট্রীয় নিরপেক্ষতায় কর্তব্য ৃপালনেরচেষ্টা করছি। আমি কাদেরকে সেদিন দেখেছিলাম, ‘আওয়ামী লীগের মাস্তানদের’ সঙ্গে নিয়েই নিয়ে তিনি মুভ করেছেন নির্বাচন কেন্দ্রে পরিদর্শনে, আমাদের উপর চাপ দিয়েছেন। এদেশে বীরপুরুষের কলঙ্ক কম না। কত আর বলা যায়।

কে এক খ্যাতিমান গতরাতের টিভিতে বললো, কাদের-এর হাটুর সমান নতুন প্রজন্ম । তারা নাকি তার সনদ বাতিলের দাবি করছে? আমি জানি না তা করেছে কি না। হয়তো ওরা জানে না, সনদ বাতিলের আইন নাই। কিন্তু থাকলে ভালই হত। এই ২০১৩ ই টিকে যাবে। গেলে বিগত দিনের অনেক বীর, অনেক মুক্তিযোদ্ধাই পাশ-মার্ক পাবেন না, হলফ করে বলতে পারি।

কে কার হাটুর সমান? তারা কি জানেন? তরুণ প্রজন্মের এমন অনেকে শাহবাগ চত্বরে আছেন যারা ইউরোপ, আমেরিকার শ্রেষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ। তাদের অনেকের সঙ্গে দেশ, রাষ্ট্র, রাজনীতি, সমসাময়িক বিশ্বের আন্দোলন নিয়া বিশ মিনিট শুদ্ধ ভাষায় কথা বলার ক্ষমতা কাদের সিদ্দীকির আছে? আমি সন্দেহ করি।

বিদ্যমান অধ:পতন, টেন্ডারবাজ, মান্তান, দূর্নীতিবাজ ঠিকাদারদের বদলে নতুন একটা তারুণ্য ও জাগরণ দেখছি। এটাই মূলধারা। তাদেরকে অনেক কিছুর সহ্য করেও সম্পর্ক রাখতে হয় মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির সঙ্গে । কারন, তাদের উপর সরাসরি ঝাপিয়ে পড়ছে, যুদ্ধাপরাধী-রাজাকার চক্র। যাদের পত্রিকা, মিডিয়া গুরত্ব দিয়ে¡ বঙ্গবীরের বীরত্বকে কাভারেজ দিচ্ছে নিত্যদিন। তাঁর কভার নিয়ে ফায়ার করছে, গণআন্দোলনের ওপর। শেখ মুজিব কবর থেকে ওঠে আসলে বলতেন-- কাদের, তুই এখন কাদের মোল্লার পক্ষে, তুই আমার কেউ না।

শেখ বাতেন
মুক্তিযোদ্ধা
সমাজবিজ্ঞান বিভাগ,
স্টেট ইউনিভাসিটি অব নিউ ইয়র্ক।

কাদের সিদ্দিকীকে ধিক্কার (ভিডিও) সৌজন্যে: সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন